বিশ্ব ও সাহিত্য

বিশ্ব ও সাহিত্য

আপু আপনাদের কতো সুবিধা.. চাইলেই কোটা সংস্কার আন্দোলনে যেতে পারছেন, আর আমরা!ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও পলিটিকাল বড় ভাইদের ভয়ে যেতে পারছি না।"এক ছোট ভাইয়ের পাঠানো মেসেজটার দিকে অনেক্ষণ তাকিয়ে ছিলাম..কি বলবো বুঝতে পারছিলাম না !! সত্যিই তো, আমরা (মেয়েরা) হলে থাকা...
  জীবন ছিলো হাসি,গান আর উচ্ছলতায় ভরা, এমন সময় ফাগুন এসে হঠাৎ দিলো ধরা। বসন্তের ফুল ছড়িয়ে দিলো পাগল করা ঘ্রাণ, সব পিছুটান ভুলে সেদিন দিয়েছি মন,প্রাণ। ঢেউয়ে,ঢেউয়ে নাও ভাসিয়ে সুখের পথচলা, চন্দ্রিমা সেই নীরব রাতের স্মৃতি জড়ানো কথা। এক সুদীর্ঘ পথ পাড়ি দিতে হঠাৎ এলো ঝড়, থমকে গেলো জীবন রঙিন বিষুব,চরাচর।
  ভালোবেসে হাসলে শিশির হৃদয় উঠে দুলে, উদাসীনি জ্যোৎস্না তখন আলো দিতে ভুলে। মনকাননে ফুলের কাছে ভ্রমর করে গান, ভালোবাসা পাওয়ার আশায় উতাল থাকে প্রাণ। ভালোবাসায় ছন্দ থাকে আরো থাকে সুর, প্রেমের বাঁশি বাজে যখন লাগে সু-মধুর। পাগল করা ভালোবাসা কোথা আছে বলো, আঁধারিয়া জীবন পঁটে প্রেম জ্বালে আলো। মোহনিয়া বাঁশির সুরে ক্লান্ত দুপুর বেলা, মনময়ূরী ছুটে বেড়ায় খেলে...
চোখ দুটো পাথরের মত।একটু ভাতের জন্য হাহাকার।উলাপুরা গ্রামের সকলের অবস্থা যেন অমনি। একদিন সুশ্রী একটি ১০/১২বছরের মেয়ে তার মায়ের কাছে ভাত চাইলো পেল না।মা বলল,"রাইতে খাইছ,অহন খাওন যাইব না।তুমি আবার রাইতে খাইবা।" মেয়েটি কিছু বলে না।অবাধ চোখের পানি চলে এলে মেয়েটি...
  ব্যস্ত জীবন, ব্যস্ত সময়, ব্যস্ত সারাক্ষণ, ব্যস্ত তুমি,ব্যস্ত আমি, ব্যস্ত, তোমার মন। ক্লান্ত দুপুর, ক্লান্ত বিকেল,রোদ্রের হাতছানি। সময়ের তরে সময় হয় না আপন মানুষের জন্যি। ব্যস্ততা দেখিয়ে দূরে সরে যায় তাদের মনখানি। চাঁদ দেখার সময় হয়না মেঘার লুকুচুরিতে!! মনের খেয়াল সে কি করে বলো রাখে? গুরুম গুরুম মেঘের...
  আজ চাইছি তোমায় স্পর্শে সারাক্ষণ অনুভূতি নিয়ে, আসবে কি হৃদয় জুড়ে? ভালোবাসা যাবো দিয়ে। তোমার মনটা চাই প্রতিক্ষণে সবটা জুড়িয়ে থাকবে, নিশিতে হঠাৎ চিৎকার করি আমার এ কল্পনাকে ভেবে। সূর্য উঠবে জানি ভোরে কাদবে অভাগীর দুঃখে বেড়ে যাবে অগ্নি লেলিহান আমার ঐসিক্ত চোখে। হারায় যদি তোমায় আমি আঁধারে ডাকবে জীবন, জানি কখনো আসবেনা...
  কোথায় যেনো দেখেছি তোমায়- চোখের গহীনে কি যেনো লুকিয়ে আছে- সে খবর কে বা জানে! তোমারে পথের বাঁক পেড়িয়ে দাঁড়িয়ে আছি হায় অসময়ে ডাকতে গিয়ে ডেকেছ- চোখের ইশারায়। তোমার চোখে বৃষ্টি হলেই ভিজব সাথে আমি মেঘের সাথে ভেসে বেড়াই ডাকলে চোখে নামি অবাক চোখে তাকিয়ে...
–ডঃ আশরাফ সিদ্দিকী, সাবেক মহাপরিচালক, বাংলা একাডেমী। ‘তবুও বৃষ্টি আসুক’ কবি শফিকুল ইসলামের অনন্য কাব্যগ্রন্থ। গ্রন্থটি প্রকাশ করেছে আগামী প্রকাশনী। তার কবিতা  আমি ইতিপূর্বে  পড়েছি । ভাষা বর্ণনা প্রাঞ্জল এবং তীব্র  নির্বাচনী। “তবুও  বৃষ্টি  আসুক” গ্রন্থে  মোট ৪১ টি কবিতা  রচিত হয়েছে।...
রৎ তুমি কখন এলে __________মো: আবদুল মান্নান। দূর নীলিমায় সাদা মেঘের ভাসছে ভেলা দলে দলে, কাশ ফুলেরা শুধায় তাদের দূর দেশে যাও; আমায় ফেলে ? দূর দেশের পাহাড় চূড়া ডাকছে আমায় ক্ষণে ক্ষণে, নিচু পানে দারুণ তুমি ! সবুজ শ্যামল
  আনাজপাতির ভিতর ঘাপটি মেরে থাকা লাল টমেটো ইশারায় ডাকে কাফন সাদা কাটিং বোর্ডের উপর কিছু বুঝার আগেই ওষ্ঠজোড়ায় লেপটে যায় নির্দ্বিধায় কাঁচামরিচের ঝালে নয় কিংবা পেয়াজের ঝাঁজেও নয় বৃষ্টি নোঙর ফেলে অবহেলিত রান্নাঘরে নিষ্কাম শূন্যতায়। একলা ঘরে ভোজনের আয়োজনে দু’মুঠো চাল না হয় ফুটিয়ে নিবো বিরহ-আগুনে...
ব্রেকিং নিউজ :
Loading...